ট্রাম্পের হুমকিতে জাকারবার্গের জবাব

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর লাগাম টানার বিষয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হুমকির জবাব দিয়েছেন ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক জাকারবার্গ। তিনি বলেছেন, ‘সেন্সরশিপ নিয়ে উদ্বিগ্ন সরকারের পক্ষে প্ল্যাটফর্ম সেন্সর করা সঠিক প্রতিচ্ছবি হবে না।’ ফক্স নিউজ চ্যানেলকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জাকারবার্গ এ কথা বলেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, বৃহস্পতিবার এক নির্বাহী আদেশে সই করেন ট্রাম্প। এর মাধ্যমে নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোকে ফেসবুক টুইটারের মতো কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার ক্ষমতা দেওয়া হবে।নির্বাহী আদেশে সই করার আগে ট্রাম্প ফেসবুক, টুইটারের মতো সোশ্যাল মিডিয়াগুলোকে ‘নিয়ন্ত্রণহীন শক্তি’ বলে অভিহিত করেন।

জাকারবার্গ বলেছেন, ‘আমাকে বুঝতে হবে—তারা আসলে কী করতে চায়। তবে সাধারণভাবে আমি মনে করি, সরকার প্ল্যাটফর্ম সেন্সর করা বেছে নিচ্ছে কারণ তারা সেন্সরশিপ সম্পর্কে উদ্বিগ্ন । আমারে কাছে এটি সঠিক প্রতিচ্ছবি হিসেবে মনে হচ্ছে না।’

কমিউনিকেশন ডিসেন্সি অ্যাক্টের ২৩০ ধারা সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং প্ল্যাটফর্মকে আত্নরক্ষার সুযোগ দিয়েছে। আইনের ২৩০ ধারার অধীনে আছে যে, সোশ্যাল নেটওয়ার্কগুলো সাধারণত তাদের ব্যবহারকারীদের কোনো পোস্টের জন্য দায়বদ্ধ নয়, তবে ‘গুড সামারিটান ব্লকিং’– যেমন অশ্লীল, হয়রানিমূলক বা হিংসাত্মক বিষয় মুছে ফেলতে পারবে।

নির্বাহী আদেশে উল্লেখ করা হয়েছে, যেকোনো সামাজিক নেটওয়ার্ক যদি ব্যবহারকারীদের পোস্ট সম্পাদনা করে, তবে এই আইনি দায়বদ্ধতা প্রযোজ্য নয়।ওই আদেশে কংগ্রেস থেকে ধারা ২৩০ ‘অপসারণ বা পরিবর্তন’ করার জন্য আইন গঠনের আহ্বান জানিয়েছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *